• ঢাকা বুধবার
    ০১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯

নিপাহ ভাইরাসে এক নারীর মৃত্যু, খেজুরের রস পানে সতর্কতার পরামর্শ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১১, ২০২৩, ০৯:১৪ পিএম

নিপাহ ভাইরাসে এক নারীর মৃত্যু, খেজুরের রস পানে সতর্কতার পরামর্শ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

কাঁচা খেজুরের রস খেয়ে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) ‘শীতকালীন সংক্রামক রোগ ও নিপাহ ভাইরাস সংক্রমণ’ শীর্ষক এক মেডিকেল কনফারেন্সে এ তথ্য জানায় সংস্থাটি।

আইইডিসিআর জানায়, নিপাহ ভাইরাসে মৃত নারীর বাড়ি রাজশাহী এলাকায়। খেজুরের রস খেয়ে তিনি বাদুড় বাহিত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এর আগে গত বছরও (২০২২) নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্তের তিনটি কেস পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে দুজন মারা গেছেন। এদের একজন ছিলেন নওগাঁর, অন্যজন ফরিদপুরের।

আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক তাহমিনা শিরিন বলেন, কাঁচা খেজুরের রস ও বাদুড়ের অর্ধেক খাওয়া ফল খাওয়া যাবে না। বাদুড়ের মূত্র বা লালার মাধ্যমে নিপাহ ভাইরাস ছড়ায়।

তিনি বলেন, বাদুড় যখন খেজুরের রস খায়, তখন তার দ্বারা সেটি ‘ইনফেকটেড’ হয়ে যায়। মানুষ সেই রস কাঁচা খেলে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। তারপর আক্রান্ত ব্যক্তির মাধ্যমে তার পরিবারের সদস্য ও পরিচিতরা আক্রান্ত হয়। তাদের মাধ্যমে স্বাস্থ্যকর্মীরাও আক্রান্ত হতে পারেন।

আইইডিসিআর পরিচালক আরও বলেন, নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত ৭১ শতাংশ মানুষ মারা যায়। তাই কাঁচা খেজুরের রস খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

সম্মেলনে অন্য বক্তারা জানান, দূষিত খেজুরের রস খাওয়ার পর নিপাহ আক্রান্তের লক্ষণ দেখা দিতে ৮-৯ দিন লাগতে পারে। অন্যদিকে, ইতোমধ্যে আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এসে আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে লক্ষণ দেখা দেয় ৬-১১ দিন পর।

আইইডিসিআর গবেষকদের মতে, খেজুরের রস জ্বাল দিয়ে খেলে তা নিরাপদ, রস থেকে তৈরি গুড়ও নিরাপদ। সংস্থাটি গাছিদের রস সংগ্রহের পর সাবান দিয়ে ভালোভাবে হাত ধোয়ার পরামর্শ দিয়েছে।

আর্কাইভ