• ঢাকা বুধবার
    ২৯ মে, ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দুই স্ত্রীকে সমান সময় দিতে‘অভিনব পদ্ধতি’ যুবকের

প্রকাশিত: মার্চ ২০, ২০২৩, ১২:২২ এএম

দুই স্ত্রীকে সমান সময় দিতে‘অভিনব পদ্ধতি’ যুবকের

ছবি: সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের গোয়ালিয় একজন পুরুষ দুই তরুনীর স্বামী। তারা নিজেদের মধ্যে ঝগড়ঝাঁটি না করে মিলেমিশেই দিন পার করেনে। এই দুই নারী অভিনব পদ্ধতি বের করেছেন স্বামীকে কাছে পাওয়ার জন্য। জানা যায়, যুবকের দুই স্ত্রী তিনদিন করে সান্নিধ্য পান।

প্রথম তিন দিন স্বামীকে কাছে পান প্রথম স্ত্রী। পরবর্তী তিন দিন যুবক দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে সময় কাটান। সময়ের এই সমবণ্টনের ফলে তাঁদের কারও মধ্যে অশান্তি হয় না বলে দাবি। এতে তাদের মধ্যে কোনো ঝামেলাও হয় না।সময়ের এই সমবণ্টনের ফলে তাঁদের কারও মধ্যে অশান্তি হয় না বলে দাবি।

এখানেই শেষ নয়, সপ্তাহে ৬ দিন স্ত্রীদের সঙ্গে সময় কাটানোর পর যুবকের হাতে রবিবারটি অবশিষ্ট থাকে। সে দিনের জন্যও বন্দোবস্ত আছে। স্বামীকে ব্যক্তিগত ভাবে সময় কাটাতে রবিবার ‘ছুটি’ দিয়েছেন স্ত্রীরা। সপ্তাহের ওই এক দিন যুবক স্ত্রীদের সঙ্গে নয়, নিজের মতো করে সময় কাটান।

ভারতের এক সংবাদমাধ্যম জানায়, ২০১৮ সালে গোয়ালিয়রের তরুণীর সঙ্গে বিয়ে হয় ওই যুবকের। তারা দু’বছর সংসার করেন। তাদের এক পুত্রসন্তানও রয়েছে। এর পর করোনা মহামারির সময় স্ত্রী এবং পুত্রকে বাপের বাড়িতে রেখে আসেন যুবক। কর্মস্থলে তিনি এক সহকর্মীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। প্রথম স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও দ্বিতীয় বার বিয়ে করেন যুবক। দ্বিতীয় স্ত্রী একটি কন্যা সন্তানের জন্মা দেন।

প্রথম স্ত্রী এ কথা জানতে পেরে যুবকের বিরুদ্ধে পারিবারিক আদালতে মামলা করেন। তিনি স্বামীর কাছ থেকে ভরণপোষণের অর্থ দাবি করেন। পারিবারিক আদালতে শুনানির সময়েই সমঝোতার পথে হাঁটেন দম্পতি। স্থির হয়, দুই স্ত্রীকে নিয়েই সংসার করবেন যুবক। প্রত্যেককে সমান সময় দেবেন। তার পর থেকে দুই সতীন স্বামীর সংসারে মানিয়ে নিয়েছেন। গুরুগ্রামে সুখে-শান্তিতে সংসার করছেন তারা।

 

আর্কাইভ