• ঢাকা বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৩০ ভাদ্র ১৪২৯

এবার ইডেন ছাত্রলীগ নেত্রীর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীর গায়ে গরম চা ঢেলে নির্যাতনের অভিযোগ

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২, ০৭:৫৩ পিএম

এবার ইডেন ছাত্রলীগ নেত্রীর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীর গায়ে গরম চা ঢেলে নির্যাতনের অভিযোগ

অভিযুক্ত ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আয়শা ইসলাম মীম

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের। এক ছাত্রীর গায়ে গরম চা ঢেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আয়শা ইসলাম মীমের বিরুদ্ধে। তিনি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রীভার অনুসারী। অভিযোগ রয়েছে অবৈধ শিক্ষার্থী রাখার প্রতিবাদ করায় ওই ছাত্রীর গায়ে গরম চা ঢেলে ও হাতে মোচড় দিয়ে নির্যাতন করেন মীম।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ইডেন কলেজের শহীদ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রী নিবাসের ৩১৩ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ও কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সোমবার সকালে ওই ছাত্রী হলের রিডিং রুমে পড়তে যান কলেজছাত্রী ঐশী। সেখানে গিয়ে দেখেন প্রবেশমুখে একটি টেবিল বসানো। টেবিলটি বসিয়েছে অন্য একটি মহিলা কলেজের কয়েকজন ছাত্রী, যারা মীমের ছত্রছায়ায় ইডেনের ছাত্রীনিবাসে অবৈধভাবে থাকেন। প্রবেশমুখে টেবিল বসানোর কারণে রিডিং রুমে ঢুকতে অন্য ছাত্রীদের সমস্যা হচ্ছিল। তা দেখে ঐশী বহিরাগত ছাত্রীদের টেবিলটি সরাতে বলেন। কিন্তু তাতে কর্ণপাত করেননি তারা।

এরপর ভুক্তভোগী ছাত্রী তাদের বলেন, ‘আপনারা অবৈধভাবে ইডেনের হলে থাকেন কেন? আবার টেবিল সরাতে বললেও সরান না।’ এ নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীরা ঐশীকে ‘দেখে নেয়া’র হুমকি দিয়ে চলে যান।

সন্ধ্যায় হলের ৩১৩ নম্বর কক্ষে বসে চা পান করছিলেন ঐশী। এ সময় বহিরাগত ছাত্রীদের নিয়ে তার কক্ষে আসেন অভিযুক্ত আয়শা ইসলাম মীম। কেন তার মেয়েদের (অনুসারীদের) সঙ্গে তর্কে জড়ালো, এ নিয়ে ঐশীকে বকাঝকা ও গালাগাল করতে থাকেন তিনি। এক পর্যায়ে গায়ে গরম চা ঢেলে দেন ও হাতে মোচড় দিয়ে তিনিও ‘দেখে নেয়ার হুমকি’ দিয়ে চলে যান।

কিছুক্ষণ পর ওই ছাত্রলীগ নেত্রী আবার ঐশীর কক্ষে আসেন এবং জানিয়ে যান, এ ঘটনা বাইরে জানাজানি হলে তিনি ঐশীকে দেখে নেবেন।

ভুক্তভোগী ঐশী বলেন, ‘মীম আপুর অনুসারী বহিরাগত মেয়েরা রিডিং রুমে যাতায়াতের পথে টেবিল রেখে সেখানেই পড়তো। তাদের বলেছিলাম- আপু, আমরা এখান দিয়ে যাওয়া-আসা করি, টেবিল সাইড করে রাখলে ভালো হয়। তারপরও তারা সাইড করেনি। সেকেন্ড টাইম বলার পর তারা চেঁচামেচি শুরু করে। তখন আমি তাদের বলি, ইলিগ্যাল (অবৈধ) কথা বলেন কেন! এটা শুনে তারা আমাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।’

তিনি বলেন, ‘সন্ধ্যায় আমি চা পান করছিলাম। মীম আপু আমার রুমে এসে গায়ের ওপর গরম চা ঢেলে দিয়ে রুমের সবাইকে বের হয়ে যেতে বলেন। আমি ভয় পেয়ে কাউকে বের হতে দেইনি। পরে তিনি আমার হাত ধরে মোচড় দেন। এতে আমার হাত মচকে যায়। আমি ম্যামদের বিষয়টি জানিয়েছি। তারা বিষয়টি দেখবেন বলে জানিয়েছেন।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কলেজ ছাত্রলীগের একাধিক নেত্রী জানিয়েছেন, ‘মীম অনেক উগ্র মেজাজের। তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আছে৷ তিনি প্রায়ই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এ ধরনের খারাপ আচরণ করেন। কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভার ছত্রছায়ায় আসন বাণিজ্য থেকে শুরু করে নানা অপকর্মে লিপ্ত তিনি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত আয়শা ইসলাম মীম বলেন, ‘আমার একজন মেয়ের (অবৈধভাবে থাকা ছাত্রী) সঙ্গে লিগ্যাল একজনের (সাধারণ ছাত্রী) কথা কাটাকাটি হয়েছে। এর বেশি কিছু হয়নি। গরম চা ঢেলে দেয়ার মতো কিছু হয়নি।’

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তিলোত্তমা শিকদার বলেন, ‘আমি সন্ধ্যার পরে (মঙ্গলবার) ইডেন কলেজে যাবো৷ বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে৷’

ইডেন কলেজের শহীদ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রী হল সুপার নাজমুন নাহার বলেন, ‘এ বিষয়ে অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা হয়েছে। আজ আমাদের মিটিং আছে। সেখানে আলোচনা হবে। কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হলে আগামীকাল বিস্তারিত জানা যাবে।’

ইডেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ বলেন, ‘আমরা ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ প্রমাণিত হলে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, গত ২০ আগস্ট ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে না যাওয়ার কারণে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা একটি ছাত্রীনিবাসের স্নাতক চতুর্থ বর্ষের কয়েক শিক্ষার্থীকে তাদের রুম থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠে। এই ঘটনায় তামান্নার হুমকি দেওয়ার একটি অডিও রেকর্ড ফেসবুকে ভাইরাল হয়। সেখানে ছাত্রীদের তামান্না ‌‘এক পায়ে পাড়া দিমু, আরেক পা টাইনা ধইরা ছিঁড়া ফেলমু’ বলে শাসাতে শোনা গেছে।

এই অডিও ফাঁস হওয়ার ঘটনায় বেকায়দায় পড়ে ক্ষমা চাইলেও পুষে রাখা রাগ কমেনি রিভার। তিন দিন পরই নতুন বিতর্কে জড়ান এই নেত্রী। এবার দুই ছাত্রীকে ৭ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতন ও নগ্ন করে ভিডিও ধারণ করে ভাইরাল করার হুমকির অভিযোগ উঠে ছাত্রলীগের এই নেত্রীর বিরুদ্ধে।

 

 এআরআই

আর্কাইভ