• ঢাকা শুক্রবার
    ১৪ জুন, ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
সৌদি গ্যাজেটের প্রতিবেদন

বিনোদন খাত সমৃদ্ধ করে রাজস্ব বাড়াতে নতুন পদক্ষেপ সৌদি সরকারের

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৩, ২০২৪, ০৩:১১ পিএম

বিনোদন খাত সমৃদ্ধ করে রাজস্ব বাড়াতে নতুন পদক্ষেপ সৌদি সরকারের

বিনোদন ডেস্ক

বিনোদন খাত সমৃদ্ধ করে রাজস্ব আয় বাড়াতে পদক্ষেপ নিয়েছে সৌদি আরব। সিনেমা হল পরিচালনার নবায়ন ফি উল্লেখযোগ্য হারে কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। ফলে সিনেমা টিকিটের দাম কমবে ব্যাপক। সৌদি গ্যাজেটের প্রতিবেদনে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে। 

বিনোদন খাত সমৃদ্ধ করতে সৌদি আরবের সংস্কৃতিমন্ত্রী প্রিন্স বদর বিন আবদুল্লাহ এবং ফিল্ম কমিশনের পরিচালনা পর্ষদ একগুচ্ছ উদ্যোগ নিয়েছে। এর মধ্যে স্থায়ী ও অস্থায়ী সিনেমার পাশাপাশি বিশেষ বৈশিষ্ট্যের সিনেমার অনুমোদন ফি কমানো হবে। 

এ’ ক্যাটাগরির শহরগুলোর স্থায়ী সিনেমা হলের ফি দুই লাখ ১০ হাজার সৌদি রিয়াল থেকে কমিয়ে ২৫ হাজার সৌদি রিয়াল করা হয়েছে। এসব শহরে অস্থায়ী সিনেমা হল পরিচালনার খরচ এখন এক লাখ ৫ হাজার সৌদি রিয়াল থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার সৌদি রিয়ালে। 

‘এ’ ক্যাটাগরির শহরগুলোতে স্থায়ী সিনেমা হলের ফি এখন প্রতি শাখায় তিন হাজার সৌদি রিয়াল, যা আগের স্ক্রিন প্রতি ২১ হাজার সৌদি রিয়াল থেকে অনেক কম। অস্থায়ী সিনেমা হলের শাখায় ফি কমানো হয়েছে। এখন ‘এ’ ক্যাটাগরির শহরগুলোতে শাখাপ্রতি ফি ৫০০ সৌদি রিয়াল নির্ধারণ করা হয়েছে। 

চলচ্চিত্র খাতের সমৃদ্ধি আরও উৎসাহিত করতে এবং সৌদি জনগণের কাছে সিনেমা আরও সহজলভ্য করার বৃহত্তর প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এই ব্য়য় কমানো হয়েছে।   

রিয়াদের সিনেমা হলে এখন মানভেদে টিকিটের দাম ৩৫ সৌদি রিয়াল থেকে শুরু করে ৫৪ রিয়াল পর্যন্ত। এই দাম অর্ধেকেরও বেশি কমবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

প্রতিষ্ঠার পর থেকে সৌদি আরবের চলচ্চিত্রশিল্পের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে ফিল্ম কমিশন। এর কৌশলগত উদ্দেশ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে— খাতের অবকাঠামো উন্নত করা, বিনিয়োগের প্রচার করা এবং স্থানীয় প্রতিভাদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা। সৌদি আরবকে এই অঞ্চলের একটি শীর্ষস্থানীয় চলচ্চিত্র শিল্প কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে এই প্রচেষ্টাগুলো ডিজাইন করা হয়েছে। 

সিনেমা খাতের জোরদার উন্নয়নে বেসরকারি খাতকে টিকিটের দাম কমাতে এবং প্রচারে উৎসাহিত করতে সিনেমার টিকিটের রাজস্বের জন্য ভর্তুকি দিতে চায় কমিশন। সিনেমা স্ক্রিন সংখ্যা বাড়ানো এবং সৌদি চলচ্চিত্রের স্থানীয় স্ক্রিনিং বাড়ানোর লক্ষ্যে এসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এতে সিনেমায় সাংস্কৃতিক ও সৃজনশীল বৈচিত্র্য তৈরি হবে বলে আশা করা হচ্ছে। 

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের এপ্রিল থেকে ছয় বছরে ছয় কোটি ১০ লাখ সিনেমার টিকেট বিক্রির মাধ্যমে ৩৭০ কোটি সৌদি রিয়াল বা ৯৮ কোটি ৬০ মার্কিন ডলার আয় করেছে সৌদি আরব।

আর্কাইভ