• ঢাকা শুক্রবার
    ১৪ জুন, ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ঐতিহ্যবাহী মসজিদকুড় মসজিদ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ০৯:৪৩ পিএম

ঐতিহ্যবাহী মসজিদকুড় মসজিদ

মসজিদকুড় মসজিদ খুলনা।

ফিচার ডেস্ক

বাংলাদেশের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন ও দর্শনীয় স্থানের মধ্যে অন্যতম ‘মসজিদকুড় মসজিদ’। এটি খুলনার কয়রা উপজেলার কপোতাক্ষ নদের পাশে অবস্থিত। ১৪৫০-১৪৯০ সালের সময়কালে খানজাহান আলীর শিষ্য বুড়া খান ও ফতেহ খান মসজিদটি নির্মাণ করেন। ইট-সুরকির তৈরি মসজিদটি দক্ষিণ বাংলার সবচেয়ে প্রাচীন প্রত্নসম্পদ। 

ঐতিহাসিক মসজিদকুড় মসজিদ | প্রথম আলো


আগে অঞ্চলটি বন ও বিভিন্ন গাছ-পালায় ভরপুর ছিল। পরবর্তীতে খননকার্য সম্পাদনা করে মাটির নিচের এই মসজিদটি আবিষ্কার করা হয়। মসজিদটি আবিষ্কারের সময় সেখানে কোনো শিলালিপি পাওয়া যায়নি বলে এর নির্মাণ সময় সম্পর্কে সঠিক ধারণা পাওয়া যায় না। মাটির নিচ থেকে খুঁড়ে মসজিদটি আবিষ্কৃত হয় বলে একে মসজিদকুড় নামে নামকরণ করা হয়েছিল।

সুন্দরবনের অবিস্মরণীয় কীর্তি মসজিদকুড় মসজিদ অনন্য স্থাপত্য


মসজিদটির প্রতিটি দেয়াল প্রায় সাত ফুট প্রশস্ত। এটি বর্গাকারে নির্মাণ করা হয়েছিল, যার বাইরে ও ভেতরের দৈর্ঘ্য ৫৪ ও ৩৯ ফুট। মসজিদটির সামনে রয়েছে তিনটি দরজা ও অভ্যন্তরে রয়েছে পাথরের তৈরি চারটি স্তম্ভ। দেয়াল ও স্তম্ভ মিলিয়ে তিনটি সারিতে তিনটি করে মোট ৯টি গম্বুজ রয়েছে।
 

সাজেদ/এএল

আর্কাইভ