• ঢাকা বৃহস্পতিবার
    ২৫ জুলাই, ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

যে কারণে এন্টিবায়োটিক ব্যবহারে কড়া আইন করছে সরকার

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৫, ২০২৩, ০২:২৪ এএম

যে কারণে এন্টিবায়োটিক ব্যবহারে কড়া আইন করছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

এন্টিবায়োটিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কড়া আইন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘এরপর থেকে ইচ্ছে করলেই কেউ আর এন্টিবায়োটিক কিনতে পারবেন না।’

বুধবার (৪ জানুয়ারি) রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বাংলাদেশ ন্যাশনাল হেলথ অ্যাকাউন্টসের ষষ্ঠ রাউন্ডের চূড়ান্ত ফলাফল অবহিতকরণ কর্মশালায় মন্ত্রী একথা বলেন। জাহিদ মালেক বলেন, স্বাস্থ্যসেবায় ব্যক্তির পকেট খরচ অনেক বেশি। এই সেবায় সরকার কী পরিমাণ ব্যয় করে, সেটিও সামনে আসা উচিত। অনেক লজিস্টিক লাগে, প্রচার-প্রচারণার দরকার হয়। নতুন নতুন অবকাঠামো তৈরি হয়, সেখানেও খরচ হয়। মহামারি এলে আবার বাড়তি ব্যয় হয়, যেটা ভ্যাকসিনেশনে হয়েছে। স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দের বিষয়ে জাহিদ মালেক বলেন, স্বাস্থ্য খাতে ৩৭ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়সহ যা প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকা। এর বাইরে এনজিও সংস্থাগুলোও রয়েছে। আমাদের মাথাপিছু ব্যয় ৫৪ ডলার, যা শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের চেয়েও কম। আমরা হয়তো জিডিপির শেয়ার কম পাচ্ছি, এটা বাড়ানো দরকার। পকেট খরচ কমাতে হলে প্রাইভেটের খরচ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। আবার বিদেশে বড় একটা অংশ চিকিৎসা নেয়, সেটিরও একটা প্রভাব এতে পড়ে। পাশাপাশি বিভিন্ন জায়গায় যন্ত্রপাতিসহ অনেক কিছু নষ্ট হয়ে যায়। ফলে চিকিৎসা ব্যয়ের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। এজন্য তদারকি ও জবাবদিহি বাড়াতে হবে। তবে আশার কথা হলো, অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি স্বাস্থ্য খাতে সরকারের ব্যয় বাড়ছে।


স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, স্বাস্থ্যখাতে এসব ঘাটতি থাকলে দেশ এগোতে পারবে না। এই মুহূর্তে দায়বদ্ধতা ও তদারকি সবচেয়ে বেশি দরকার। দুর্নীতি যদি বন্ধ করা যায়, তাহলে অনেক কিছু পরিবর্তন হবে। পাশাপাশি উন্নত দেশগুলোর মতো সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে স্বাস্থ্যবীমা চালু করতে হবে।

স্বাস্থ্য সম্পর্কিত আরও

আর্কাইভ