• ঢাকা বুধবার
    ২৯ মে, ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
টেলিগ্রাফের প্রতিবেদন

ইরানে পাল্টা হামলার প্রস্তুতি নিয়েছে ইসরাইল

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২৪, ১১:০০ পিএম

ইরানে পাল্টা হামলার প্রস্তুতি নিয়েছে ইসরাইল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গাজা যুদ্ধকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে আছে গোটা মধ্যপ্রাচ্য। এরই মধ্যে শনিবার গভীর রাতে ইসরাইলে ইরানের হামলা বিশ্বজুড়ে উত্তেজনা বাড়িয়েছে। হামলা পালটা হামলায় মেতে উঠেছে মধ্যপ্রচ্যের দেশগুলো। এবার ইরানে পালটা আক্রমণের প্রস্তুতি নিয়েছে ইসরাইলও। 

ইরানের হামলার জবাব দিতে পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে দেশটি। রোববার এমন সিদ্ধান্তের কথাই জানিয়েছে ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ)। বলেছে, ইরানের হামলার জবাব দিতে এবার দেশটিতে হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে। তবে সময় এবং হামলার ধরন নির্ধারণ করা হয়নি। সোমবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফের প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।ইসরাইলি বাহিনী ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে ইরানি কনস্যুলেটে বিমান হামলা চালায়। এতে ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) আল-কুদস ফোর্সের দুই শীর্ষ জেনারেলসহ ১১ জন নিহত হন। যার জবাবে শনিবার নিজেদের ভূখণ্ড থেকে ইসরাইলে একসঙ্গে বেশ কয়েকটি ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। এই হামলায় ইসরাইলের একটি গোয়েন্দা কেন্দ্র ও একটি বিমান ঘাঁটি ধ্বংস করার দাবি করেছে ইরান। এবার সেই হামলারই পালটা জবাব দেওয়ার কথা জানিয়েছে ইসরাইল। আইডিএফ জানিয়েছে, পশ্চিমা বিশ্বের নেতাদের সতর্কবার্তা সত্ত্বেও ইসরাইল ইরানে হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে। 

টাইমস অব ইসরাইলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার ইরানি হামলার পরিকল্পনার বিষয়টি নির্ধারণ করতে অন্তত ৩ ঘণ্টা ধরে বৈঠক করেছে ইসরাইলি যুদ্ধ মন্ত্রিসভা। দীর্ঘ সময় ধরে বৈঠক করলেও হামলার সময় ও ধরন নির্ধারণ করতে পারেনি। খুব শিগগিরই এই বৈঠক আবার শুরু হবে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম চ্যানেল-১২। 

এদিকে ইরানের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক প্রতিশোধ না নেওয়ার জন্য ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। একই সঙ্গে তিনি নেতানিয়াহুকে তার দেশের পরবর্তী পদক্ষেপ সম্পর্কে সতর্কতার সঙ্গে ভাবারও পরামর্শ দেন। তবে বাইডেনের পরামর্শ মেনে ইসরাইল তাৎক্ষণিকভাবে ইরানে আক্রমণ না চালালেও তারা জানিয়েছে, ইরানে নিজের মতো করে বেছে উপায় ও সময়ে হামলা চালানোর অধিকার তাদের (ইসরাইলের) আছে।

ইরানে পালটা হামলা চালালে তাতে অংশ নেবে না যুক্তরাষ্ট্র। রোববার রাতে ফোনকলের মাধ্যমে নেতানিয়াহুকে এ কথা জানিয়েছেন বাইডেন। হোয়াইট হাউজ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে আলজাজিরা জানিয়েছে, হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পালটা হামলায় সহায়তা না করলেও ইসরাইলকে প্রতিরক্ষার কাজে সহায়তা দেবে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের হামলার পর থেকেই সারা বিশ্বের পরিস্থিতি নিয়ে চলছে নানান জল্পনা-কল্পনা। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই হামলার জবাব যদি ইসরাইল দেয় এবং তাতে যদি যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্ররা জড়িয়ে পড়ে তবে তা গোটা বিশ্বের জন্যই ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করবে। এ পরিস্থিতিতে বিশ্বনেতারা সব পক্ষকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। ওই অঞ্চলে উত্তেজনা না বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনও। বলেছেন, ইসরাইলের মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বাড়ানো উচিত হবে না। এছাড়াও ইসরাইলের প্রতি যুক্তরাজ্যের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন তিনি।

এদিকে রোববার রাতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ ইরানের হামলার বিষয়ে জরুরি বৈঠক করে। জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস কাউন্সিলকে বলেছেন, আঞ্চলিক এবং প্রকৃতপক্ষে বৈশ্বিক শান্তি ও নিরাপত্তা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ক্ষুণ্ন হচ্ছে। এই অঞ্চল বা বিশ্বের কেউই আর যুদ্ধের ভার সহ্য করতে পারবে না। এদিকে আত্মরক্ষার জন্য তেহরানের কাছে পালটা জবাব দেওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প ছিল না বলে উল্লেখ করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত আমির সাইয়েদ ইরাভানি। 

তিনি আরও বলেছেন, নিরাপত্তা পরিষদ আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখতে তার দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে। এ কারণেই তেহরানের কাছে পালটা জবাব দেওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প ছিল না। সহিংসতা বৃদ্ধি অথবা যুদ্ধ কোনোটিই চায় না ইরান। তবে যে কোনো ধরনের হুমকি বা আগ্রাসনের জবাব দেবে ইরান। দামেস্কে ইরানের কনস্যুলেটে অবৈধভাবে হামলার ঘটনায় জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণেই তেহরান হামলা চালিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব সংস্থায় রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ভ্যাসিলি নেবেনজিয়াও। তিনি আরও বলেছেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ ওই অঞ্চলে সর্বশেষ সহিংসতাকে উসকে দিয়েছে। রোববার নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে এ মন্তব্য করেন তিনি।

আর্কাইভ