• ঢাকা শুক্রবার
    ২১ জুন, ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা পঙ্গু করে দেওয়া হয়েছে: জামায়াত

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২৪, ০৭:৪৮ পিএম

দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা পঙ্গু করে দেওয়া হয়েছে: জামায়াত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে মানবাধিকার আজ ভূলুণ্ঠিত। জনগণকে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না। মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা পঙ্গু করে দেওয়া হয়েছে। দেশে জানমাল, ইজ্জত-আব্রুর কোনো নিরাপত্তা নেই। প্রতিবেশী রাষ্ট্রের মদতে বর্তমান আওয়ামী সরকার নানা কূটকৌশলে গত ৭ জানুয়ারি এক অদ্ভূত ডামি নির্বাচন করে জনগণের ম্যান্ডেট ছাড়াই আবারো ক্ষমতা দখল করেছে। জনগণ সরকারের এই ডামি নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে। জাতিসংঘ ও গণতান্ত্রিক বিশ্ব সরকারের ডামি নির্বাচনকে এখনো স্বীকৃতি দেয়নি। বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক বিশ্ব থেকে একঘরে হওয়ার উপক্রম হয়েছে। সরকারের ফ্যাসিজমের বিরুদ্ধে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সরকারের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

শুক্রবার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে আয়োজিত সহযোগী সদস্য সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- সদ্য কারামুক্ত সেক্রেটারি জেনারেল, সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এটিএম মাসুম, এএইচএম হামিদুর রহমান আযাদ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দ, অধ্যক্ষ মো. ইজ্জত উল্লাহ, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া।

আরও বক্তব্য দেন- কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমির আব্দুস সবুর ফকির, অ্যাডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিন, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি দেলাওয়ার হোসেন, কামাল হোসাইন ও ড. আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, কুরআনের সব বিধানই সমাজে কায়েম করা ফরজ। কোনো একটি বিধান অস্বীকার করলে কাফির বলে গণ্য হবেন। অথচ আমাদের দেশে কুরআনের বিধান চালু নেই। এজন্য নাগরিকগণ তাদের প্রাপ্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। কুরআনের বিধান চালু হলে মানুষ প্রাপ্য অধিকার ফিরে পাবে। মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে ইসলামকে বিজয়ী শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আমাদের শপথ নিতে হবে এ পথে হয়তো আমরা বিজয়ী হব নতুবা আমাদের জীবন চলে যাবে তবুও এ থেকে আমরা বিচ্যুত হব না। মানুষের ঘরে ঘরে আল্লাহর দ্বীনের দাওয়াত ও জামায়াতের আহবান পৌঁছে দিতে হবে। জামায়াতে ইসলামীর জনশক্তিদের নিজেদের পরিবার, প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনের হক আদায় করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, মানুষ হিসেবে আমরা আল্লাহর কাছে ওয়াদা করেই এসেছি নিশ্চয়ই আল্লাহ আমাদের রব। তিনি আমাদের হুকুমদাতা, তিনি আমাদের বিধানদাতা, রিজিকদাতা সবকিছু- এটা স্বীকার করেই আমরা দুনিয়ায় এসেছি। সুতরাং সত্যিকার অর্থে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ- এ কথা মেনে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা বাস্তবায়নে আমাদের ভূমিকা রাখার চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে।

রাজনীতি সম্পর্কিত আরও

আর্কাইভ