• ঢাকা মঙ্গলবার
    ১৬ জুলাই, ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
প্রস্তুতি ম্যাচ

আফগানদের বিপক্ষে বড় হার সাকিবদের

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৮, ২০২২, ১২:১২ এএম

আফগানদের বিপক্ষে বড় হার সাকিবদের

ক্রীড়া ডেস্ক

বড় মঞ্চে লড়াইয়ে নামার আগে নিজেদের পরখ করতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ দল। তবে ফলটা মোটেও ভালো হয়নি। আফগানিস্তানের দেয়া ১৬১ রানের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে নেমে ১০০ রানও তুলতে পারেনি সাকিব আল হাসানরা। লাল সবুজ দল হেরেছে ৬২ রানে।

১৬১ রানের লক্ষ্যে তাড়া করতে নেমে শুরুটা দেখেশুনেই করে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ওভারে মেহেদি হাসান মিরাজ বাউন্ডারি হাঁকালেও পরের ২ বলে রান নিতে পারেননি। সেই ওভারর শেষ ২ বলে আরও ২টি বাউন্ডারি হাঁকান নাজমুল হোসেন শান্ত।

কিন্তু তৃতীয় ওভারের শেষ বলে এসে বাংলাদেশ প্রথম উইকেট হারিয়ে বসে। ফজল হক ফারুকির বল শান্তর স্ট্যাম্প ভেঙে দেয়। বলের গতি এতোটাই ছিল বেল উড়ে চলে যায় বাউন্ডারি লাইকের কাছে। এরপর চতুর্থ ওভারের শেষ বলে মুজিব উর রহমানের বলে স্টাম্পিং হন সৌম্য সরকার।

২ উইকেট হারিয়ে বসা বাংলাদেশকে বিপদ মুক্ত করতে মিরাজের সঙ্গে ক্রিজে আসেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু অসাধারন এক ডেলিভারিতে সাকিবের স্টাম্প ভেঙে দেন ফারুকি। এরপরের বলে আফিফকে লেগ বিফরের ফাঁদে ফেলেন এই পেসার।

ক্রিজে নেমে ইয়াসির আলি রাব্বিও ফিরতে সময় নেননি। বাউন্স সামাল দিতে না পেরে টপ এজে উইকেটের পেছনে ০ রানে তালুবন্দি হন এই ব্যাটার। ব্যাটারদের আসা-যাওয়ার মাঝে একটু লড়াই করেন নুরুল হাসান সোহান। তবে ৮ বলে ১৩ রান করে ৫০‍‍`র আগে তিনিও ফেরেন। এক রান পর নাভিন উল হককে বড় শট মারতে গিয়ে স্টাম্প উড়ে যায় মিরাজের। ৩১ বলে ১৬ রানে ফেরেন তিনি। শেষের দিকে মোসাদ্দেকের লড়াইয়ে ১০০‍‍`র কাছে যায় বাংলাদেশ। ২৭ রান আসে তার ব্যাট থেকে।  

এর আগে সোমবার (১৭ অক্টোবর) ব্রিসবেনের অ্যালান বোর্ডার ফিল্ডে টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন আফগানিস্তানের অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে মাত্র ২ রান নিলেও পরের ওভারে হাত খুলে খেলার চেষ্টা করেন রহমানুল্লাহ গুরবাজ ও হজরতউল্লাহ জাজাই। তৃতীয় ওভারে হাসানের বলে চার ও ছক্কা মারলেও জাজাইকে থিতু হতে দেননি তাসকিন আহমেদ। নিজের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসে তাকে ফেরান তিনি। তাসকিনের ব্যাক অব লেংথ ডেলিভারিতে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মোসাদ্দেকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ১৬ বলে ১৫ রান করা জাজাই।

এরপর দ্বিতীয় উইকেটে জুটি গড়েন রহমানউল্লাহ গুরবাজ ও ইম্রাহীম জাদরান। দেখে শুনে দলকে ৫০‍‍`র ওপর নিয়ে যান তারা। সাকিবের ওভারে ছক্কাও হাঁকান গুরবাজ। কিন্তু এর পরের বলেই সফল হন সাকিব। বাংলাদেশের অধিনায়ককে আবারও ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে আফিফ হোসেনের তালুবন্দি হন গুরবাজ। সঙ্গী হারিয়েও ডারউইশ রাসুলিকে নিয়ে দলকে ১০০‍‍`র পথে নিতে থাকেন জাদরান। এগোতে থাকেন হাফ সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু দলীয় ১০০‍‍`র আগে ডারউইশ ও ব্যক্তিগত ৪৬ রানে জাদরান উইকেট ছুঁড়ে দেন হাসান ও তাসকিনকে।

৪ উইকেট হারিয়ে বসা আফগানদের আরও বিপদে ফেলেন নাজিবুল্লাহ জাদরান ও উসমান গনি। দলীয় ১২৭ রানে ৬ উইকেট গেলেও মোহাম্মদ নবি স্কোরবোর্ডে রান বাড়াতে থাকেন। তাসকিনের তৃতীয় শিকার হয়ে আজমতউল্লাহ ওমরজাই ফিরলেও, ৩য় ও ৫ম বলে তাকে ছক্কা হাঁকান নবি।

তাতেই ১৬০‍‍`র ঘরে পৌঁছে যায় আফগানিস্তান। আফগান দলপতির ১৭ বলে ৪১ রানের সুবাদে ১৬০ রানের পুঁজি পায় আফগানরা। যদিও এর আগে একবার আউট হতে পারতেন নবি, কিন্তু তার ক্যাচ ফেলেছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ১৬১ রান। সাকিব ও হাসান নিয়েছেন ২টি করে উইকেট।

জেডআই/

আর্কাইভ