• ঢাকা বুধবার
    ০১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯

উইলিয়াম-কেটের রাজকীয় বিয়ে

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০২২, ০৪:৪১ পিএম

উইলিয়াম-কেটের রাজকীয় বিয়ে

বিয়ের পর গির্জায় উইলিয়াম এবং কেট মিডলটন।

ফিচার ডেস্ক

ব্রিটিশ রাজপরিবারের আরেকটি ব্যয়বহুল বিয়ের পাত্র-পাত্রী হলেন প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটন। বিয়েটি ছিল ইংল্যান্ডের ভবিষ্যৎ রাজা-রানীর। রাজকীয় এই বিয়ে সম্পন্ন হয় ২০১১ সালে ২৯ এপ্রিল। তাদের বিয়েটি হয় অতিমাত্রায় রাজকীয় স্টাইলে। রাজকীয় সব রীতিনীতি অনুসরণ ও অতিথি আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে বিয়েটি হয়। উৎসবমুখর পরিবেশে এই বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে রাজপরিবার।

 

ওয়েস্ট মিনিস্টার অ্যাবেতে প্রায় ৩৪ মিলিয়ন বা ৩ কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলার খরচে এই বিয়ে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছিল।


ওয়েস্ট মিনিস্টার অ্যাবেতে প্রায় ৩৪ মিলিয়ন বা ৩ কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলার খরচে এই বিয়ে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছিল। 

প্রিন্স উইলিয়াম একজন সাধারণ মেয়েকে বিয়ে করেছেন। কেটের মা এয়ার হোস্টেস। আর বাবা সাধারণ একজন ব্যবসায়ী। তবে এরা দু‍‍`জনেই ইংরেজ।
বিয়েতে উইলিয়াম লাল রঙয়ের সামরিক পোশাক আর কেট সাদা গাউন পরিধান করেছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে কনে কেটকে আংটি পরান উইলিয়াম। তখন উইলিয়ামের বয়স ছিল ২৮ এবং মিডলটনের বয়স ২৯।

আরও পড়ুনঃ আওয়ামী লীগ সবর্দা দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করে : প্রধানমন্ত্রী

প্রায় আড়াই লাখ পাউন্ড মূল্যের অনন্য এই পোশাকটির ডিজাইন করেছিলেন ব্রিটেনের বিখ্যাত ম্যাককুইন ফ্যাশন হাউসের ক্রিয়েটিভ ডিজাইনার সারাহ বার্টন। রেশমের তৈরি পোশাকটির পেছনের ঝুলটি ছিল ৯ ফুট লম্বা। মাথার ঘোমটা এবং জামার হাতা আর গলার কাছে ছিল বিভিন্ন ফুলেল কাজ। খোলা চুলে মাথায় পরেছিলেন আইভরির ওপর হীরে বসানো তাজ। সব মিলিয়ে কেটের চেহারায় ফুটে ওঠে ব্রিটিশ হবু রানীর ছবি।

বিয়ের মূল অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটেনের তৎকালিন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, তার স্ত্রী সামান্থা, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী জুলিয়া গিলার্ড, সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী স্যার জন মেজর এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থ্যারেসা মে।
অনুষ্ঠানে ২০০০ অতিথির মধ্যে ছিলেন বর ও কনের পরিবারের সদস্যসহ আত্মীয়স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবরা। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাজপরিবারের প্রায় ৪০ জন সদস্যও অনুষ্ঠানে অংশ নেন। সেলিব্রিটিদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন ডেভিড বেকহাম ও ভিক্টোরিয়া বেকহাম দম্পতি, মি. বিন খ্যাত রোয়ান এ্যাটকিনসন, বিখ্যাত পরিচালক গাই রিচি, শিল্পী জোশ স্টোন, ড্রুকেরী, এলটন জন প্রমুখ। 
তবে এই রাজকীয় বিয়েতে অতিথিদের মধ্যে উইলিয়াম ও কেটের বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয় স্বজন বেশি ছিল। এছাড়াও বৃটিশ সামরিক বাহিনীর শীর্ষ অধিনায়ক এবং ধর্মীয় নেতা ও দাতা সংস্থার প্রতিনিধিরাও অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন।

বিশ্বের ৫০টি দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানসহ প্রায় ২০০০ অতিথির উপস্থিতিতে বিয়ের শপথনামা পাঠ করেন এ নবদম্পতি। বিশ্বজুড়ে প্রায় দুইশ‍‍` কোটি মানুষ টেলিভিশনের পর্দায় প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটনের বিয়ে দেখেছিলেন। যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি মানুষ দেখেছে এমন পাঁচটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানের একটি ছিল এটি।

উইলিয়াম ও মিডলটনের বিয়ের অনুষ্ঠানের আঁচ পেতে লন্ডনে উপস্থিত হন ব্রিটেনসহ বিশ্বের প্রায় ৯ লাখ মানুষ।


উইলিয়াম ও মিডলটনের বিয়ের অনুষ্ঠানের আঁচ পেতে লন্ডনে উপস্থিত হন ব্রিটেনসহ বিশ্বের প্রায় ৯ লাখ মানুষ।
উচ্চশিক্ষিত, আর্মি অফিসার, ফ্লাইট লেফট্যানেন্ট, এয়ার অ্যাম্বুলেন্স পাইলটসহ নানা গুণে গুণান্বিত এবং সফল প্রিন্স উইলিয়াম। ব্রিটিশ এই রাজপরিবারে গত সাড়ে তিনশো বছরের মধ্যে উত্তরাধিকার হিসাবে সাধারণ পরিবার থেকে প্রথম এসেছিলেন কেট মিডলটন। 
 

 

সাজেদ/
 

আর্কাইভ